মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১,  ১৩ আশ্বিন ১৪২৮,  Tuesday, September 28, 2021


দ্যা বাংলা টাইম

আপডেট : 2 weeks ago

Tue, Sep 14, 2021 7:46 AM

 

কুটনৈতিক বিজয়ে তিনবিঘা করিডোরের নির্মাণসামগ্রী সরিয়ে নিয়েছে বিএসএফ

Card image cap

লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রাম আঙ্গরপোতা ছিটমহলে প্রশেবদ্বার তিনবিঘা করিডোর হতে নির্মাণ সামগ্রী সোমবার দুপুরের পর হতে সরিয়ে নিতে দেখা যাচ্ছে।  ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) তিন বিঘা করিডোরের দায়িত্বে থাকা সদস্যগণ এসব নির্মাণ সামগ্রী সরিয়ে ফেলছে। 

ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশি উপ-হাইকমিশনার তৌফিক হাসান গত বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) তিনবিঘা করিডোর পরিদর্শন করে।  সে সময় ভারতীয় বিএসএফের উদ্ধর্তণ কর্মকর্তারাও তার সাথে ছিলেন।  পরিদর্শন কালে তাঁকে জানানো হয় রাস্তায় শোভাবর্ধণে করিডোরটির রাস্তার দুই পাশে মাত্র ছয় ইঞ্চি ঢালাই করে তাঁতে শোভাবর্ধনে টাইলস লাগানো হবে। 

তিন বিঘা করিডোরটি দুই দেশের পর্যন্টকদেও জন্য আকর্ষণীয় স্থান।  সেখানে দুই দেশের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক নেতারাও ভ্রমনে আসে।  তাই শোভাবর্ধনে রাস্তার দুই ধারে টাইলস লাগানোর কাজ করা হচ্ছিল। তারা তিন ফুট উঁচু করে ঢালাই ও পরে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের কথা অস্বীকার করে। 

সোমবার দুপুরের পর হতে এই সব নির্মাণ সামগ্রী সরিয়ে নিয়েছে বিএসএফ।  এটাকে বাংলাদেশ কুটনৈতিক বিজয় বলছে। 

দহগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কালাম জানান, তিন বিঘা করিডোর বাংলাদেশের যাতাযাতের অধিকার নিশ্চিত করতে ৭৪ সালের মুজিব-ইন্দিরা চুক্তি আলোকে করা হয়েছে।  গত ৭ সেপ্টেম্বর হঠাৎ তিনবিঘা করিডোরটির রাস্তার দুই ধারে তিন ফিট উঁচু পিলার করার কাজ শুরু করে দেয় বিএসএফ ও ভারতীয় প্রকৌশল দপ্তর।  এতে বিজিবি ও দহগ্রামবাসি বাঁধা দেয়।  পরে কুটনৈতিক তৎপরতায় দুই দেশের মধ্যে শান্তিপূর্ণ সমাধন হয়। 
উল্লেখ, জেলার পাটগ্রাম উপজেলার কুচলিবাড়ি ইউনিয়নের পানবাড়ি এলাকা (সংযুক্ত) থেকে দহগ্রাম ইউনিয়নের ভূখন্ড পর্যন্ত করিডোর সড়কটির দৈর্ঘ্য ১৭৮ মিটার ও প্রস্থ ৮৫ মিটার।  ১৯৭৪ সালের মুজিব-ইন্দিরা চুক্তির আলোকে ২০১১ সালের ১৯ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের সাথে সুসম্পর্ক ও চুক্তি চুডান্ত বাস্তাবায়নে ভারত সরকারের তিন বিঘা করিডোর সড়কটি দিন রাত ২৪ ঘণ্টা বাংলাদেশীদের ব্যবহারে খুলে দেয়। 

সেই দিন হতে র্নিবিঘ্নে বাংলাদেশের মূল ভুখন্ডের মানুষ ও ছিটমহলবাসি দিনরাত্রি চলাচল করছে।  বিএসএফ শুধু করিডোরটি দিয়ে যাতায়াতের সময় নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দায়িত্ব পালন করছে।

৫১ বিজিবি’র ব্যাটালিয়নের পানবাড়ি কোম্পানি কমান্ডার জাহাবুল ইসলাম জানান,  বিএসএফকে গর্ত খননের ব্যাপারে জানতে চাইলে তারা বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে সড়কটি সংস্কার ও সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ করা হচ্ছে বলে জানান।  বাংলাদেশের সাথে আলোচনা না করে তিনবিঘা করিডোরে নির্মাণ কাজ করায় বাধা দেয়।  এরপর হতে কাজ স্তগিত ছিল।  সোমবার দুপুরের পর নির্মাণ সামগ্রী বিএসএফ সরিয়ে নিতে দেখা গেছে।