শুক্রবার, ৩০ জুলাই, ২০২১,  ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮,  Friday, July 30, 2021


দ্যা বাংলা টাইম

আপডেট : 1 month ago

Fri, Jun 11, 2021 8:08 PM

 

ক্ষমা চাইলেন সাকিব

Card image cap

আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচে আউট না দেয়ায় লাথি মেরে স্টাম্প ভাঙার পর খালেদ মাহমুদ সুজনের সাথে বিতণ্ডার ঘটনায় ক্ষমা চেয়েছেন সাকিব আল হাসান।

ঘটনার পর নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে ক্ষমা চান তিনি।  সেখানে তিনি লিখেন, ‘প্রিয় ভক্ত ও অনুসারীরা, মেজাজ হারিয়ে সবার; বিশেষ করে যারা বাসায় বসে খেলা দেখছেন, তাদের ম্যাচটা নষ্ট করে দেয়ায় আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত।  আমার মতো একজন অভিজ্ঞ খেলোয়াড়ের এভাবে প্রতিক্রিয়া দেখানো ঠিক হয়নি।’

পোস্টে তিনি আরো বলেন, ‘কিন্তু মাঝেমধ্যে কিছু কিছু মতবিরোধে দুর্ভাগ্যজনকভাবে এটা ঘটে যায়।  আমি আমার দল, ম্যানেজম্যান্ট, টুর্নামেন্ট অফিসিয়াল এবং আয়োজক কমিটির কাছে এই মানবীয় ভুলের জন্য ক্ষমা চাইছি। আশা করছি, ভবিষ্যতে এটার পুনরাবৃত্তি হবে না।  ধন্যবাদ এবং সবার জন্য ভালোবাসা।’

খেলার মাঠে মেজাজ হারিয়ে ফেলা নতুন কিছু নয় সাকিব আল হাসানের জন্য।  তবে এবার যেন একটু বেশিই করে ফেলেছেন তিনি।  মোহামেডানের হয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনীর বিপক্ষে খেলতে নেমে ঘটিয়েছেন লঙ্কাকাণ্ড।  এমন কাণ্ডে হতবাক ক্রিকেটপ্রেমীরা।

আবাহনীর হয়ে খেলতে নামা মুশফিকুর রহীমকে আউট না দেয়ায় লাথি মেরে স্টাম্প ভেঙে ফেলেন তিনি।

তবে ঘটনাটি স্টাম্প ভাঙা আর আম্পায়ারের সাথে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়েই শেষ হয়নি।  এর দ্বিতীয় অংশে মঞ্চে আবির্ভূত হন আবাহনীর কোচ খালেদ মাহমুদ।  ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে তুমুল বৃষ্টি নামলে আম্পায়ার মাহফুজুর রহমান খেলা বন্ধ ঘোষণা করেন।  তিনি যখন মাঠকর্মীদের কাভার আনার ইশারা দিচ্ছেন, তখন সাকিব আম্পায়ারের দিকে এগিয়ে গিয়ে তিনটি স্টাম্পই তুলে উইকেটের ওপর ছুড়ে মারেন।  তিনি এ সময় আম্পায়ারকে প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ হয়ে কিছু একটা বলছিলেন।

খালেদ মাহমুদের দৃশ্যপটে প্রবেশ এর পরপরই।  খেলোয়াড়রা যখন মাঠ ত্যাগ করছিলেন, তখনো নিজেকে সামলাতে বেশ কষ্ট হচ্ছিল সাকিবের।  তিনি এ সময় আবাহনীর ড্রেসিংরুমের দিকে তাকিয়ে কিছু বললে খেপে গিয়ে তেড়ে আসেন কোচ মাহমুদ।  এগিয়ে যান সাকিবও।  মোহামেডানের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার তখন জাপটে ধরে থামান সাকিবকে।  মাহমুদকেও থামান মোহামেডানের শামসুর রহমান।