সোমবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২১,  ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮,  Monday, December 6, 2021


দ্যা বাংলা টাইম

আপডেট : 1 week ago

Thu, Nov 25, 2021 8:59 AM

 

প্রাথমিকে অটো প্রমোশন হচ্ছে রোল নম্বরও থাকছে বহাল

Card image cap

উপরের ক্লাসে অটো প্রমোশন পেলেও প্রাথমিকে শিক্ষার্থীদের রোল নম্বরের কোনো পরিবর্তন হচ্ছে না।  ফলে আগের ঘোষণা অনুযায়ী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোনো ক্লাসেই পরীক্ষা হবে না।  ইতোমধ্যে সবাইকে অটো প্রমোশন দিয়ে উপরের ক্লাসে তুলে দেয়ার সিদ্ধান্তও দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত বছরের মতো এবারো প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ক্লাস-পরীক্ষা ছাড়াই মূল্যায়ন করা হবে।  আগের রোল নম্বর বহাল রেখে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে উত্তীর্ণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।  সম্প্রতি শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন সংক্রান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয়ের এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব হাসিবুল আলম বলেন, ২০২০ সালে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকাকালীন যেভাবে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হয়েছে প্রধানমন্ত্রী এবারো সেভাবে মূল্যায়ন করতে নির্দেশনা দিয়েছেন।  তাই গত বছরের মতো এবারো শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা যেতে পারে।  সভায় উপস্থিত প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীসহ সবাই এ প্রস্তাবে সম্মতি দেন।

অন্য দিকে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের (ডিপিই) মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম বলেন, চলতি বছর পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষা সমাপনী হবে না বলে প্রধানমন্ত্রী সম্মতি দিয়েছেন।  বর্তমানে নিজ নিজ বিদ্যালয়ে মূল্যায়ন করা যেতে পারে বলে আন্তঃমন্ত্রণালয়ের সভায় প্রস্তাব করা হয়।  সভা শেষে চলতি বছর বার্ষিক পরীক্ষা না নিয়ে সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিজ নিজ শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।  পরে সেই সিদ্ধান্ত দেশের সব জেলায় মাঠ কর্মকর্তাদের পাঠিয়ে তা বাস্তবায়ন করার নির্দেশনা দেয়া হয়।

এ বিষয়ে ডিপিইর মহাপরিচালক বলেন, চলতি বছর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোনো স্তরে ঘোষণা দিয়ে বা প্রশ্নপত্র ছাপিয়ে পরীক্ষা নেয়া হবে না।  তবে বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা নিজ নিজ শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের মাধ্যমে পরবর্তী ক্লাসে তুলবেন।  এ ক্ষেত্রে আগের রোল নম্বর নিয়ে শিক্ষার্থীরা পরবর্তী ক্লাসে উঠবে।  তিনি আরো বলেন, শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের যত ধরনের পদ্ধতি রয়েছে সেসব পদ্ধতি শিক্ষকরা অনুসরণ করতে পারবেন।  কেউ যদি শিক্ষার্থীদের ক্লাস পরীক্ষা নেয়ার প্রয়োজন মনে করেন তারা সেটি নিতে পারবেন।  ক্লাস অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের শিখন-জ্ঞান যাচাই করাটাই মূল্যায়নের প্রধান উদ্দেশ্য হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।  এসব বিষয়ে সম্প্রতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নে নতুন নির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই)। ডিপিই’র মহাপরিচালক স্বাক্ষরিত আদেশে বলা হয়, নিজ নিজ বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারবেন।

আদেশে বলা হয়, ২০২০ সালের ১৬ মার্চ পর্যন্ত বিদ্যালয়ে পাঠদান স্বাভাবিক ছিল।  এরপর করোনা পরিস্থিতিতে এ ধারা অব্যাহত রাখতে বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতার, কমিউনিটি রেডিও এবং ডিজিটাল পদ্ধতিতে পাঠদান পরিচালনা করা হয়।  এ কার্যক্রম বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা কর্মকর্তারা সম্পৃক্ত ছিলেন।  এ অবস্থায় নিজ নিজ বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা তাদের শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারবেন।  প্রসঙ্গত, মন্ত্রণালয় বা অধিদফতরের নির্দেশনা না থাকলেও দেশের বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিকে পরীক্ষা নেয়ার মতো ঘটনা ঘটছে।  এরপরই প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর এ নির্দেশনা দিলো।